অর্থমন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী সংসদে উপস্থিত না থাকায় ক্ষোভ

0
287
parlament song

parlament songপ্রস্তাবিত ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনার সময় সংসদে অর্থমন্ত্রী ও অর্থ প্রতিমন্ত্রীর অনুপস্থিতিতে আবারো ক্ষোভ ও অসন্তোষ প্রকাশ করেছে বিরোধী দল জাতীয় পার্টি। আজ সোমবার সংসদ অধিবেশনের শুরুতে জাতীয় পার্টির এমপিরা এ বিষয়ে পয়েন্ট অব অর্ডারে বক্তব্য দিতে চান। তবে সংসদ অধিবেশন পরিচালনার দায়িত্বে থাকা ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট মো. ফজলে রাব্বী মিয়া তাঁদেরকে ফ্লোর না দেওয়ায় তাঁরা মাইক ছাড়াই ক্ষোভ প্রকাশ করে। এদিকে, অধিবেশন শুরুর পর ডেপুটি স্পিকার কার্যসূচিতে থাকা প্রশ্নোত্তর টেবিলে উপস্থাপনের পর বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিতে কুমিল্লার সংসদ সদস্য সুবিদ আলী ভূঁইয়াকে আহ্বান জানান। এই সময় জাতীয় পার্টির কাজী ফিরোজ রশীদ ও বিরোধীদলীয় প্রধান হুইপ তাজুল ইসলাম চৌধুরী পয়েন্ট অব অর্ডারে ফ্লোর চান। ডেপুটি স্পিকার ফ্লোর না দেওয়ায় ফিরোজ রশীদ মাইক ছাড়াই অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানের অনুপস্থিতির বিষয়ে ফজলে রাব্বীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে। এই সময় ডেপুটি স্পিকার বলেন, “মাননীয় সদস্য আপনি বসুন। মাননীয় চিফ হুইপ আপনি বসুন। অর্থ মন্ত্রণালয়ের ২ জন কর্মকর্তা আমার সঙ্গে দেখা করেছেন, তাঁরা এখানে আছেন। মাননীয় সদস্যদের বক্তব্য নোট করার জন্য তাঁরা আছেন।”   এর আগে গতকাল রবিবারও বাজেট আলোচনায় অংশ নিয়ে ফিরোজ রশীদ অর্থমন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর অনুপস্থিতির জন্য অসন্তোষ প্রকাশ করে। বেলা ১১টায় অধিবেশন শুরুর নির্ধারিত সময় ছিল। তবে তা দশ মিনিট দেরিতে শুরু হয়। অধিবেশন শুরুর সময় সংসদের কেবিনেট কক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিপরিষদের নিয়মিত বৈঠক চলছিল। সংসদের বৈঠক শুরুর সময় পুরো অধিবেশন পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা ছাড়া আর কোনো মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী সংসদ কক্ষে উপস্থিত ছিলেন না। এই সময় সরকারি দলের সামনের সারিতে ছিলেন আলী আশরাফ, মহিউদ্দীন খান আলমগীর, রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু এবং রহমত আলী। পয়েন্ট অব অর্ডারে ফ্লোর না পেলেও বাজেট আলোচনায় অংশ নিয়ে জাতীয় পার্টির এমপিরা মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর অনুপস্থিতিতে ক্ষোভ জানান। বিরোধীদলীয় সদস্য খোরশেদ আরা হক তাঁর বক্তৃতায় বলেন, “আমরা সম্মানিত সংসদ সদস্য। বাজেট নিয়ে আলোচনা করছি। আর মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী এখানে উপস্থিত নেই। এটা কী ধরনের কথা। তাঁদের উপস্থিত থাকা উচিত ছিল। ভবিষ্যতে তাঁরা যেন বাজেট আলোচনায় সংসদে উপস্থিত থাকেন।” এর আগে রবিবার একই বিষয় নিয়ে ক্ষোভ জানান বিরোধী দলের সদস্যরা।

LEAVE A REPLY