ঘুম বিষয়ে ৭ ভুল ধারণা ও বাস্তবতা জেনে নিন

0
633
child selping

আমাদের প্রতিদিন কতক্ষণ ঘুমানো উচিত কিংবা দেহের ওজন বজায় রাখার সঙ্গে ঘুমের সম্পর্ক ইত্যাদি নিয়ে বহু ভুল বিষয় জানা রয়েছে। ঘুম বিষয়ে বিশেষজ্ঞ ড. রবার্ট ওয়েক্সম্যান সম্প্রতি এসব বিষয়ে কিছু তথ্য প্রকাশ করেছেন।

এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে আইএনসি।
১. ধারণা : আপনার দেহের ওজন কমানোর পেছনে মূল ভূমিকা পালন করে ডায়েট ও এক্সারসাইজ।
বাস্তবতা : মানুষের দেহের সঠিক ওজন বজায় রাখতে ঘুমের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। সঠিকভাবে ঘুম না হলে ডায়েট ও এক্সাসারইজের মাধ্যমে দেহের ওজন নিয়ন্ত্রণ করা অসম্ভব।
২. ধারণা : ঘুম আনতে চাইলে পড়াশোনা করা হতে পারে একটি ভালো উপায়।
বাস্তবতা : বই বড় কোনো বিষয় নয়। আপনি যদি ঘুমাতে চান এবং ঘুম না আসে তাহলে কৃত্রিম বা নীল আলো থেকে সাবধান হোন। এসব ঘুমের পরিবেশ নষ্ট করে।
৩. ধারণা : বিছানায় টিভি দেখলে সহজেই ঘুমিয়ে পড়া যায়।
বাস্তবতা : যে কোনো ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহারে ঘুমের সমস্যা হয়। এর মধ্যে টিভি, স্মার্টফোন, ট্যাব ইত্যাদি রয়েছে। এমনকি ঘুমাতে যাওয়ার দুই-তিন ঘণ্টা আগেই ওগুলো ব্যবহার বন্ধ করা উচিত।
৪. ধারণা : ঘুমের সমস্যায় যদি আপনার অসুবিধা না হয় তাহলে কোনো ক্ষতি হবে না।
বাস্তবতা : পর্যাপ্ত ঘুম না হলে আপনার নানা ধরনের সমস্যা হবে। এসব সমস্যার মধ্যে রয়েছে সংক্রমণের ঝুঁকি বৃদ্ধি, হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, ওজন বৃদ্ধি, ক্যান্সার, বিষণ্ণতা, উদ্বেগ ও দুর্ঘটনা।
৫. ধারণা : সপ্তাহান্তে ঘুমের সমস্যাতে বড় কোনো অসুবিধা হবে না।
বাস্তবতা : সপ্তাহান্তেও ঘুমের সঠিক নিয়ম মেনে চলা উচিত। অন্যথায় তা নানা ধরনের শারীরিক ও মানসিক সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে।
৬. ধারণা : আপনার বয়স যত বাড়বে আপনার ঘুমের চাহিদাও তত কমবে।
বাস্তবতা : বয়স্ক ব্যক্তিদের ঘুমের চাহিদা কমে যায় এমনটাই অনেকে ধারণা করেন। যদিও বাস্তবতা হলো বয়স্ক ব্যক্তিদেরও একই ধরনের ঘুমানো উচিত। ঘুমের মাত্রা বয়স বাড়লেও কমানো উচিত নয়।
৭. ধারণা : নাক ডাকা সমস্যায় দম্পতিদের আলাদাভাবে ঘুমানোই সবচেয়ে ভালো।
বাস্তবতা : সম্পর্ক ঠিক রাখার জন্য এটি কোনো বাস্তব সমাধান নয়। এক্ষেত্রে ঘুমের মাঝে কেন নাক ডাকা সমস্যা হচ্ছে, তা নির্ণয় করা উচিত। এরপর তা দূর করার পদক্ষেপ নেওয়া উচিত। কারণ নাক ডাকা সমস্যা কোনো অবস্থাতেই থাকা উচিত নয়। এতে স্বাস্থ্যের মারাত্মক ক্ষতি হয়।

LEAVE A REPLY