দ্বিতীয় বিয়ে করার ইচ্ছা আফ্রিদির!

0
561
afridi-bpl

আধুনিক সামাজিক ধারণা অনুযায়ী বিয়ে তো সাধারণত জীবনে একবারই হয়। কিন্তু অনেকে আবার এই মতাদর্শের ব্যতিক্রম হয়ে জীবনে একাধিক বিয়ে করে থাকেন। ধর্মীয় সম্প্রদায়, তারকামহল থেকে শুরু করে অল্পসংখ্যক সাধারণ মানুষের মাঝেও একাধিক বিয়ের প্রবণতা লক্ষ করা যায়। পাকিস্তানি ক্রিকেট গ্রেট শহীদ আফ্রিদি অবসরের পরও ক্রিকেটবিশ্বর মহাতারকা। তারও নাকি দ্বিতীয়বার ‘কবুল’ বলার ইচ্ছে জাগে! বউয়ের চোখ রাঙানি উপেক্ষা করে সেই ইচ্ছের কথা এবার নিজেই প্রকাশ করলেন বুম বুম আফ্রিদি নিজে।

মারকুটে ব্যাটিংয়ের ক্ষমতার পাশাপাশি সুদর্শন চেহারার অধিকারী আফ্রিদির মেয়েভক্তর সংখ্যা অন্য যেকোনো ক্রিকেটারদের থেকে বেশি বই কম নয়। আফ্রিদি মাঠে নেমেছে আর তরুণী মহল ‘ম্যারি মি আফ্রিদি’ প্লাকার্ড নিয়ে স্টেডিয়ামে যায়নি এমনটা প্রায় অসম্ভব। এ নিয়ে সমালোচনারও অন্ত নেই। পুরো ক্যারিয়ারে কতশত বিয়ের প্রস্তাব পেয়েছেন তার হিসেব নেই। তবে এসব সামলেছেন খুব কৌশলী হয়ে। তাই মাঠের বাইরে তাকে নিয়ে নারীঘটিত বিতর্ক দু-একটা থাকলেও ডালপালা মেলতে পারেনি। এর পেছনেও কারণ আছে।

পাকিস্তানি চ্যানেল জিও নিউজের এক অনুষ্ঠানে আফ্রিদি বলেছেন, “আমি খুব কম বয়সে বিয়ে করেছি স্ক্যান্ডাল এবং বিতর্ক থেকে দূরে থাকার জন্য। কোনো বিতর্কিত বিষয় যেন আমাকে সঠিক পথ থেকে সরিয়ে নিতে না পারে সে ভাবনা আমার মনে সব সময় ছিল। আসলে আমি কখনও ট্যাবলয়েড পত্রিকার শিরোনাম হতে চাইনি।

বিষয়টি একদিক দিয়ে দৃষ্টান্তমূলক। বাংলাদেশসহ ক্রিকেটবিশ্বর বেশ কয়েকজন বড় তারকা কম বয়সে বিয়ে করে এখনও পারফর্মেন্সের চরমে আছেন। তাদের ক্যারিয়ারে কখনও স্ক্যান্ডাল ছড়ায়নি। অন্যদিকে অজি গ্রেট শেন ওয়ার্ন দীর্ঘদিন আগে অবসর নিলেও এখনও তার নামের প্রতিশব্দ হলো ‘স্ক্যান্ডাল’। তো ফেরা যাক আফ্রিদির কথায়। সেই অনুষ্ঠানে মজা করে উপস্থাপক প্রশ্ন করেন, আফ্রিদির ২য় বিয়ের ইচ্ছে আছে কিনা।

উত্তরটাও মজা করেই দেন আফ্রিদি। তিনি বলেন, “প্রতিটি মানুষই ২য় বিয়ে করতে চায়। অনেকেই করে আবার অনেকেই বিষয়টা মনের মাঝেই রেখে দেয়। আমি হলাম ২য় দলে। ২য় বিয়ের ইচ্ছা আমার মনের মাঝেই সীমাবদ্ধ; বাস্তবে নয়।

LEAVE A REPLY